ঢাকা ০৫:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

স্ত্রী চলে যাওয়ায় বিষপানে স্বামীর আত্মহত্যা

newsbijoy.com

সংসার ছেড়ে স্ত্রী ঢাকায় পাড়ি জমায় রিকসাভ্যান চালক স্বামী শফিকুল ইসলাম (৫০) বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার (০৯) সেপ্টেম্বর রংপুরের কাউনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
নিহত শফিকুল ইসলাম রংপুরের পীরগাছা উপজেলার কালাপেট ভাতা গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে কয়েকজন লোক শফিকুল ইসলামকে অসুস্থ অবস্থায় জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে। ওই ব্যক্তি কীটনাশক জাতীয় বিষ খেয়েছে বলে পরিবারের লোকজন জানায়। পরে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। শুক্রবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় পৌনে দুইটার দিকে মারা যান তিনি। বিষয়টি থানা পুলিশে জানানো হয়।
কাউনিয়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সেলিমুর রহমান জানান, খবর পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ পাঠানো হয়। আত্মহত্যার রহস্য উদঘাটনে নিহতের পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলে পুলিশ।
তিনি বলেন, পীরগাছার কালাপেট ভাতা গ্রামের রিকসাভ্যান চালক শফিকুল পেশায় একজন রিকসাভ্যান চালক ছিলেন। তার প্রথম স্ত্রী দুই মেয়ে রেখে প্রায় তিনবছর আগে মারা যায়। বড় মেয়ের বিয়ে হয়েছে এবং ছোট মেয়ে দশম শ্রেনিতে পড়ে। প্রায় দুইবছর আগে শফিকুল পাশের এলাকায় দ্বিতীয় বিয়ে করেন। কিন্তু ছোট মেয়েকে কোনভাবে মেনে নিতে পারছিল না সৎমা। ছোট মেয়ে এবং সাংসারিক বিভিন্ন কারণে শফিকুলের সাথে দ্বিতীয় স্ত্রীর ঝগড়া লেগেই থাকতো। এরই জেরে গত জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহের দিকে স্বামীর সাথে রাগ করে দ্বিতীয় স্ত্রীর বাপের বাড়ীতে চলে যায়। এরপর তিনি স্বামীর বাড়ীতে ফিরে আসে না। পরে স্বামীকে না জানিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী ঢাকায় পাড়ি জমায়। স্ত্রী চলে যাওয়ায় মানসিকভাবে হতাশায় পড়েন শফিকুল। হতাশাগ্রস্থ হয়ে কয়েকদিন আগে শফিকুল তার ছোট মেয়েকে মারপিট করে। পরে ছোট
মেয়েও নানার বাড়ীতে চলে যায়। স্ত্রী চলে যাওয়া এবং নানা কারণে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে বৃহস্পতিবার শফিকুল বাড়ীর এলাকায় কীটনাশক জাতীয় বিষ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। টের পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে কাউনিয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। শুক্রবার (০৯) সেপ্টেম্বর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সেলিমুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় তাদের মুছলেখা নিয়ে বিনা ময়নাতদন্তে নিহতের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

গণতন্ত্রের মানসকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার শুভ জন্মদিন আজ

আজ বুধবার, দেশের কোথায় কখন লোডশেডিং

স্ত্রী চলে যাওয়ায় বিষপানে স্বামীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত সময়: ০৮:২৯:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

সংসার ছেড়ে স্ত্রী ঢাকায় পাড়ি জমায় রিকসাভ্যান চালক স্বামী শফিকুল ইসলাম (৫০) বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার (০৯) সেপ্টেম্বর রংপুরের কাউনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।
নিহত শফিকুল ইসলাম রংপুরের পীরগাছা উপজেলার কালাপেট ভাতা গ্রামের আজিজুল হকের ছেলে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে কয়েকজন লোক শফিকুল ইসলামকে অসুস্থ অবস্থায় জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে। ওই ব্যক্তি কীটনাশক জাতীয় বিষ খেয়েছে বলে পরিবারের লোকজন জানায়। পরে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়। শুক্রবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় পৌনে দুইটার দিকে মারা যান তিনি। বিষয়টি থানা পুলিশে জানানো হয়।
কাউনিয়া থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সেলিমুর রহমান জানান, খবর পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ পাঠানো হয়। আত্মহত্যার রহস্য উদঘাটনে নিহতের পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলে পুলিশ।
তিনি বলেন, পীরগাছার কালাপেট ভাতা গ্রামের রিকসাভ্যান চালক শফিকুল পেশায় একজন রিকসাভ্যান চালক ছিলেন। তার প্রথম স্ত্রী দুই মেয়ে রেখে প্রায় তিনবছর আগে মারা যায়। বড় মেয়ের বিয়ে হয়েছে এবং ছোট মেয়ে দশম শ্রেনিতে পড়ে। প্রায় দুইবছর আগে শফিকুল পাশের এলাকায় দ্বিতীয় বিয়ে করেন। কিন্তু ছোট মেয়েকে কোনভাবে মেনে নিতে পারছিল না সৎমা। ছোট মেয়ে এবং সাংসারিক বিভিন্ন কারণে শফিকুলের সাথে দ্বিতীয় স্ত্রীর ঝগড়া লেগেই থাকতো। এরই জেরে গত জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহের দিকে স্বামীর সাথে রাগ করে দ্বিতীয় স্ত্রীর বাপের বাড়ীতে চলে যায়। এরপর তিনি স্বামীর বাড়ীতে ফিরে আসে না। পরে স্বামীকে না জানিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী ঢাকায় পাড়ি জমায়। স্ত্রী চলে যাওয়ায় মানসিকভাবে হতাশায় পড়েন শফিকুল। হতাশাগ্রস্থ হয়ে কয়েকদিন আগে শফিকুল তার ছোট মেয়েকে মারপিট করে। পরে ছোট
মেয়েও নানার বাড়ীতে চলে যায়। স্ত্রী চলে যাওয়া এবং নানা কারণে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে বৃহস্পতিবার শফিকুল বাড়ীর এলাকায় কীটনাশক জাতীয় বিষ খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। টের পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে কাউনিয়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। শুক্রবার (০৯) সেপ্টেম্বর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। ইন্সপেক্টর (তদন্ত) সেলিমুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় তাদের মুছলেখা নিয়ে বিনা ময়নাতদন্তে নিহতের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন