ঢাকা ০৯:২৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে পাকিস্তানের প্রতিশোধ

  • অনলাইন ডেস্ক :-
  • প্রকাশিত সময়: ১২:০১:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
  • 854

newsbijoy.com

এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের দেখায় পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল ভারত। আর সুপার ফোরে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচের শেষ ওভারে ৫ উইকেটের জয়ে সেই প্রতিশোধ তুলে নিল পাকিস্তান। দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) ভারতের দেয়া ১৮২ রানের তাড়া করতে নেমে ১৯.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। রিজওয়ান ৫১ বল মোকাবিলায় ৬ চার ও ২ ছক্কার মারে ৭১ রানের ইনিংস খেলেন। এছাড়া ২০ বল মোকাবিলায় দুইশোর্ধ্ব স্ট্রাইরেটে ৪২ রান করে ম্যাচ জয়ের ভিত গড়ে দেন মোহাম্মদ নেওয়াজ। তার ব্যাট থেকে ৬ চারের সঙ্গে আসে ২টি ছক্কার মার। ইনিংসের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দেখেশুনে খেলার চেষ্টা করেন বাবর আজম ও রিজওয়ান। কিন্তু চতুর্থ ওভারে এসে বাবর শর্ট মিডউইকেটে থাকা রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। রবি বিষ্ণুইয়ের বলে আউট হওয়ার আগে ২ চারের মারে ১০ বলে ১৪ রান করেন বাবর। এরপর ফখর জামান ১৮ বলে ১৫ রানের ইনিংস খেলে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে ধরা পড়েন বাউন্ডারিতে থাকা বিরাট কোহলির হাতে।
এর আগে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান সংগ্রহ করে ভারত। গ্রুপপর্বে দুদলের দেখায় বোলিং ইনিংসের শুরুটা দারুণ করেছিলেন পাকিস্তানি পেসার নাসিম শাহ। মাত্র ৩ রান দিয়ে তিনি নিয়েছিলেন একটি উইকেট। কিন্তু সুপার ফোরে নাসিমের করা প্রথম ওভারে ভারত তুলেছে ১১ রান। পরের ওভারে মোহাম্মদ হাসনাইন দেন ৯ রান। নিজের দ্বিতীয় ওভার করতে এসে নাসিম দেন ১৪ রান। মারমুখী রোহিত আউট হন হারিস রউফের বল ভাসিয়ে দিয়ে। রোহিতের ক্যাচ নিতে গিয়ে একে অপরের সঙ্গে ধাক্কা খান খুশদিল শাহ ও ফখর জামান। গায়ে গায়ে সংঘর্ষ হলেও বল খুশদিল শাহের তালুবন্দী ঠিকই হয়।মাত্র ১৬ বলে ২৮ রান করেন ভারত ওপেনার। পাকিস্তানি বোলারদের খরুচে স্পেলের পর পাওয়ার প্লে শেষে এক উইকেটে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬২। সপ্তম ওভারের প্রথম বলেই শাদাব খান ফিরিয়ে দেন লোকেশ রাহুলকে। ২০ বলে তার ২৮ রানের ইনিংসটিতে ছিল একটি চার ও ২টি ছয়ের মার। ভারতের এই মুহূর্তের সবচেয়ে ইনফর্ম ব্যাটার সূর্যকুমার যাদব। শুরু থেকে মারকুটে থাকা যাদবকে ১৩ রানের মাথায় আসিফ আলির ক্যাচ বানান মোহাম্মদ নেওয়াজ। তিন উইকেট হারিয়ে ফেলার পর অনেকটাই মন্থর হয়ে যায় ভারতের ইনিংস। এরই মধ্যে পন্তের উইকেটও হারায় তারা। শাদাবের অফ স্টাম্পের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দেন আসিফ আলির হাতে। ১২ বলে মাত্র ১৪ রান করেন ভারত উইকেটরক্ষক। আগের ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৩ রান করা হার্দিক পান্ডিয়া এদিন ফেরেন ডাক মেরে। হাসনাইনের বলে ক্যাচ দিয় প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। কোহলি হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৩৬ বলে। পঞ্চম উইকেট যাওয়ার পর হোদার সঙ্গে ২৪ বলে ৩৭ রানের পার্টনারশিপ করেন তিনি। এরপর হোদা আউট হন নাসিম শাহর বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে। ১৪ বলে ১৬ রান করেন তিনি। কোহলি রানআউট হন ৬০ রানে। তার ৪৪ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৪টি চার ও একটি ছয়ের মার। আগের ম্যাচেও হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন এ তারকা। শেষ দিকে নিজেদের ভুলে দুটি চার হজম করে ভারত।

নিউজ বিজয়/মোঃ নজরুল ইসলাম

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

রানির মৃত্যুসনদে যা লেখা হয়েছে

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে পাকিস্তানের প্রতিশোধ

প্রকাশিত সময়: ১২:০১:৫১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

এশিয়া কাপে গ্রুপ পর্বের দেখায় পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল ভারত। আর সুপার ফোরে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচের শেষ ওভারে ৫ উইকেটের জয়ে সেই প্রতিশোধ তুলে নিল পাকিস্তান। দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) ভারতের দেয়া ১৮২ রানের তাড়া করতে নেমে ১৯.৫ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। রিজওয়ান ৫১ বল মোকাবিলায় ৬ চার ও ২ ছক্কার মারে ৭১ রানের ইনিংস খেলেন। এছাড়া ২০ বল মোকাবিলায় দুইশোর্ধ্ব স্ট্রাইরেটে ৪২ রান করে ম্যাচ জয়ের ভিত গড়ে দেন মোহাম্মদ নেওয়াজ। তার ব্যাট থেকে ৬ চারের সঙ্গে আসে ২টি ছক্কার মার। ইনিংসের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দেখেশুনে খেলার চেষ্টা করেন বাবর আজম ও রিজওয়ান। কিন্তু চতুর্থ ওভারে এসে বাবর শর্ট মিডউইকেটে থাকা রোহিত শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন। রবি বিষ্ণুইয়ের বলে আউট হওয়ার আগে ২ চারের মারে ১০ বলে ১৪ রান করেন বাবর। এরপর ফখর জামান ১৮ বলে ১৫ রানের ইনিংস খেলে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে ধরা পড়েন বাউন্ডারিতে থাকা বিরাট কোহলির হাতে।
এর আগে নির্ধারিত ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান সংগ্রহ করে ভারত। গ্রুপপর্বে দুদলের দেখায় বোলিং ইনিংসের শুরুটা দারুণ করেছিলেন পাকিস্তানি পেসার নাসিম শাহ। মাত্র ৩ রান দিয়ে তিনি নিয়েছিলেন একটি উইকেট। কিন্তু সুপার ফোরে নাসিমের করা প্রথম ওভারে ভারত তুলেছে ১১ রান। পরের ওভারে মোহাম্মদ হাসনাইন দেন ৯ রান। নিজের দ্বিতীয় ওভার করতে এসে নাসিম দেন ১৪ রান। মারমুখী রোহিত আউট হন হারিস রউফের বল ভাসিয়ে দিয়ে। রোহিতের ক্যাচ নিতে গিয়ে একে অপরের সঙ্গে ধাক্কা খান খুশদিল শাহ ও ফখর জামান। গায়ে গায়ে সংঘর্ষ হলেও বল খুশদিল শাহের তালুবন্দী ঠিকই হয়।মাত্র ১৬ বলে ২৮ রান করেন ভারত ওপেনার। পাকিস্তানি বোলারদের খরুচে স্পেলের পর পাওয়ার প্লে শেষে এক উইকেটে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬২। সপ্তম ওভারের প্রথম বলেই শাদাব খান ফিরিয়ে দেন লোকেশ রাহুলকে। ২০ বলে তার ২৮ রানের ইনিংসটিতে ছিল একটি চার ও ২টি ছয়ের মার। ভারতের এই মুহূর্তের সবচেয়ে ইনফর্ম ব্যাটার সূর্যকুমার যাদব। শুরু থেকে মারকুটে থাকা যাদবকে ১৩ রানের মাথায় আসিফ আলির ক্যাচ বানান মোহাম্মদ নেওয়াজ। তিন উইকেট হারিয়ে ফেলার পর অনেকটাই মন্থর হয়ে যায় ভারতের ইনিংস। এরই মধ্যে পন্তের উইকেটও হারায় তারা। শাদাবের অফ স্টাম্পের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দেন আসিফ আলির হাতে। ১২ বলে মাত্র ১৪ রান করেন ভারত উইকেটরক্ষক। আগের ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৩ রান করা হার্দিক পান্ডিয়া এদিন ফেরেন ডাক মেরে। হাসনাইনের বলে ক্যাচ দিয় প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। কোহলি হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৩৬ বলে। পঞ্চম উইকেট যাওয়ার পর হোদার সঙ্গে ২৪ বলে ৩৭ রানের পার্টনারশিপ করেন তিনি। এরপর হোদা আউট হন নাসিম শাহর বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে। ১৪ বলে ১৬ রান করেন তিনি। কোহলি রানআউট হন ৬০ রানে। তার ৪৪ বলের ইনিংসটিতে ছিল ৪টি চার ও একটি ছয়ের মার। আগের ম্যাচেও হাফসেঞ্চুরি করেছিলেন এ তারকা। শেষ দিকে নিজেদের ভুলে দুটি চার হজম করে ভারত।

নিউজ বিজয়/মোঃ নজরুল ইসলাম