ঢাকা ১০:১৯ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

Up to BDT 150 Cashback on New Connection

লটারিতে ২৫ কোটি রুপি জিতলেন অটোচালক

newsbijoy.com

ভারতের কেরালায় গতকাল রোববার এক অটোরিকশাচালক লটারিতে ২৫ কোটি রুপি জিতেছেন। এনডিটিভি অনলাইনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।‘ওনাম বাম্পার লটারি’ জেতা এই অটোরিকশাচালকের নাম অনুপ। তাঁর বাড়ি কেরালার শ্রীবরাহমে। ড্রর আগের দিন শনিবার তিনি লটারিটি কিনেছিলেন। রাঁধুনি হিসেবে কাজ করার জন্য মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন অনুপ। এ জন্য তিনি ব্যাংকে তিন লাখ রুপি ঋণের জন্য আবেদন করেছিলেন। তাঁর এই আবেদন অনুমোদিত হওয়ার এক দিন পরই তিনি লটারি জিতলেন। উচ্ছ্বসিত অনুপ বলেন, ‘ঋণের বিষয়ে আজ (রোববার) ব্যাংক থেকে ফোন এসেছিল। আমি বলে দিয়েছি, আমার আর ঋণের দরকার নেই। আমি মালয়েশিয়াও যাব না।’অনুপ গত ২২ বছর ধরে লটারির টিকিট কিনছেন। আগে তিনি লটারিতে কয়েক শ রুপি থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার রুপি পর্যন্ত জিতেছেন। আর এবার জিতলেন ২৫ কোটি রুপি। অনুপ বলেন, তিনি লটারি জেতার আশা করেননি। তাই টিভিতে লটারি ড্রয়ের ফলও দেখেনি। কিন্তু তাঁর মুঠোফোনে খুদেবার্তা আসে। তিনি দেখেন, লটারি জিতে গেছেন। অনুপ আরও বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করতে পারিনি। আমি আমার স্ত্রীকে দেখালাম। তিনিও নিশ্চিত করেন যে আমার কেনা লটারির নম্বরটিই বিজয়ী।’ অনুপ বলেন, তারপরও তিনি চিন্তার মধ্যে ছিলেন। তাই তিনি লটারির টিকিট বিক্রি করেন, এমন এক ব্যক্তিকে ফোন করেন। তাঁকে লটারির টিকিটের একটি ছবি পাঠান। তিনিও নিশ্চিত করেন যে এটাই বিজয়ী নম্বর। কর কেটে নেওয়ার পর অনুপ সম্ভবত প্রায় ১৫ কোটি রুপি হাতে পাবেন। লটারি জেতার অর্থ দিয়ে কী করবেন, এমন প্রশ্নে অনুপ বলেন, তাঁর প্রথম অগ্রাধিকার হলো, নিজ পরিবারের জন্য একটি বাড়ি তৈরি করা। তাঁর ঋণ পরিশোধ করা। অনুপ বলেন, তিনি তাঁর আত্মীয়দের সাহায্য করবেন। কিছু দাতব্য কাজও করবেন। এ ছাড়া কেরালায় হোটেল ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন তিনি।সঅনুপ বলেন, ‘আমি আবার লটারির টিকিট কিনব।’ কাকতালীয়ভাবে গত বছর ওনাম বাম্পার লটারিতে ১২ কোটি রুপি জিতেছিলেন এক অটোরিকশাচালক।

নিউজ বিজয়/মোঃ নজরুল ইসলাম

সকল সংবাদ পেতে ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন…

নিউজবিজয় ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার দিন

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। উৎসর্গ করলাম আমার বাবার নামে, যাঁর স্নেহ-সান্নিধ্যের পরশ পরিবারের সুখ-দু:খ,হাসি-কান্না,ব্যথা-বেদনার মাঝেও আপার শান্তিতে পরিবার তথা সমাজে মাথা উচুঁ করে নিজের অস্তিত্বকে মেলে ধরতে পেরেছি।

রানির মৃত্যুসনদে যা লেখা হয়েছে

লটারিতে ২৫ কোটি রুপি জিতলেন অটোচালক

প্রকাশিত সময়: ০২:১৬:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

ভারতের কেরালায় গতকাল রোববার এক অটোরিকশাচালক লটারিতে ২৫ কোটি রুপি জিতেছেন। এনডিটিভি অনলাইনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।‘ওনাম বাম্পার লটারি’ জেতা এই অটোরিকশাচালকের নাম অনুপ। তাঁর বাড়ি কেরালার শ্রীবরাহমে। ড্রর আগের দিন শনিবার তিনি লটারিটি কিনেছিলেন। রাঁধুনি হিসেবে কাজ করার জন্য মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছিলেন অনুপ। এ জন্য তিনি ব্যাংকে তিন লাখ রুপি ঋণের জন্য আবেদন করেছিলেন। তাঁর এই আবেদন অনুমোদিত হওয়ার এক দিন পরই তিনি লটারি জিতলেন। উচ্ছ্বসিত অনুপ বলেন, ‘ঋণের বিষয়ে আজ (রোববার) ব্যাংক থেকে ফোন এসেছিল। আমি বলে দিয়েছি, আমার আর ঋণের দরকার নেই। আমি মালয়েশিয়াও যাব না।’অনুপ গত ২২ বছর ধরে লটারির টিকিট কিনছেন। আগে তিনি লটারিতে কয়েক শ রুপি থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার রুপি পর্যন্ত জিতেছেন। আর এবার জিতলেন ২৫ কোটি রুপি। অনুপ বলেন, তিনি লটারি জেতার আশা করেননি। তাই টিভিতে লটারি ড্রয়ের ফলও দেখেনি। কিন্তু তাঁর মুঠোফোনে খুদেবার্তা আসে। তিনি দেখেন, লটারি জিতে গেছেন। অনুপ আরও বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করতে পারিনি। আমি আমার স্ত্রীকে দেখালাম। তিনিও নিশ্চিত করেন যে আমার কেনা লটারির নম্বরটিই বিজয়ী।’ অনুপ বলেন, তারপরও তিনি চিন্তার মধ্যে ছিলেন। তাই তিনি লটারির টিকিট বিক্রি করেন, এমন এক ব্যক্তিকে ফোন করেন। তাঁকে লটারির টিকিটের একটি ছবি পাঠান। তিনিও নিশ্চিত করেন যে এটাই বিজয়ী নম্বর। কর কেটে নেওয়ার পর অনুপ সম্ভবত প্রায় ১৫ কোটি রুপি হাতে পাবেন। লটারি জেতার অর্থ দিয়ে কী করবেন, এমন প্রশ্নে অনুপ বলেন, তাঁর প্রথম অগ্রাধিকার হলো, নিজ পরিবারের জন্য একটি বাড়ি তৈরি করা। তাঁর ঋণ পরিশোধ করা। অনুপ বলেন, তিনি তাঁর আত্মীয়দের সাহায্য করবেন। কিছু দাতব্য কাজও করবেন। এ ছাড়া কেরালায় হোটেল ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন তিনি।সঅনুপ বলেন, ‘আমি আবার লটারির টিকিট কিনব।’ কাকতালীয়ভাবে গত বছর ওনাম বাম্পার লটারিতে ১২ কোটি রুপি জিতেছিলেন এক অটোরিকশাচালক।

নিউজ বিজয়/মোঃ নজরুল ইসলাম