ঢাকা ০৮:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :-
NewsBijoy নিউজ বিজয়ের পক্ষ থেকে সবাইকে  অভিনন্দন NewsBijoy  দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল  " নিউজ বিজয় নতুন আঙ্গিকে যাত্রা শুরু করলো " NewsBijoy  এ জন্য  নিউজ বিজয়ের সাইডে আপডেটের কাজ চলছে। তাই এই পরিবর্তনের সময়ে পাঠকের সাময়িক সমস্যা হতে পারে। NewsBijoy

পদ্মা সেতু নির্মাণ

রৌমারীতে অথৈ পানিতে ৫০ হাজার পরিবার বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপাকে

গত ৭ দিনের ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে পানি বেড়ে গ্রামের পর গ্রাম পানিবন্দী হয়ে পড়েছে ৩৫ টি গ্রামের ৫০ হাজার পরিবার। তলিয়ে গেছে ২৭ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ৫ শত ২২ হেক্টর জমির আউশ ধান,পাট, তিল, মরিচ ও শাকসবজি। এছাড়াও ৫৫ কিলোমিটার রাস্থাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগের পাশাপাশি কষ্টে দিন কাটছে শ্রমজীবি মানুষ। গবাদী পশুর খাদ্য নিয়ে বিপাকে খামাড়ীরা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার পূর্বা লের ভারতীয় সীমান্ত থেকে বাংলাদেশে পহাড়ি ঢলে পানি প্রবেশ করে কালোপানি হয়ে বাংলাদেশের ধর্ণী ও জিঞ্জিরাম নদীতে প্রবেশ করে নদী উপচে উপজেলার পুর্বা ল প্লাবিত হয় খেওয়ারচর, দুবলাবাড়ি, বকবান্দা, বাওয়াইরগ্রাম, কলাবাড়ি, ফুলবাড়ি, চর ইজলামারি, চান্দারচর, নতুনবন্দর, পুরাতন যাদুরচর, কাশিয়াবাড়িসহ পানিতে থৈ থৈ ৩৫ টি গ্রামের ৫০ হাজার পরিবার। তলিয়ে গেছে ২৭ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ৫ শত ২২ হেক্টর জমির আউশ ধান,পাট, তিল, মরিচ ও শাকসবজি। এছাড়াও ৫৫ কিলোমিটার রাস্থাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগের পাশাপাশি কষ্টে দিন কাটছে শ্রমজীবি মানুষ। গবাদী পশুর খাদ্য নিয়ে বিপাকে খামাড়ীরা। বন্যার কারনে নিত্য প্রয়োজনীয় সকল জিনিস পত্রের দাম বেড়েছে। অপর দিকে ভারত বাংলাদেশের শুল্ক স্থলবন্দরে আমদানি রপ্তানি গত ১ মাস যাবত বন্ধ রয়েছে। এতে শুল্ক স্থলবন্দরে পাথর আমদানী না হওয়ায় প্রায় ৭ হাজার শ্রমিকরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
যাদুরচর ইউনিয়নের ছালাম, সাহেব মিয়া জানান, হঠাৎ আকর্ষিক বন্যায় ও ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে আসা আমাদের পুরা এলাকাজুড়ে তলিয়ে গিয়ে ধান, পাট, তিল, চিনা, সাকসবজি নষ্ট হয়েছে এবং রাস্তাঘাট তলিয়ে গিয়ে হাট বাজার ও শহর স্থানে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে। এদিকে আমরা অভাবের সংসারে পরিবার নিয়ে কষ্টে আছি।
যাদুরচর ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, গত কয়েকদিন থেকে পানি বেড়ে এলাকার মানুষ পানিতে ভাসছে। রাস্তাঘাট তলিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা অচল হয়ে বিপাকে পড়েছে মানুষ। নষ্ট হয়েছে অনেক ফসলি জমি। আমি চেয়ারম্যানসহ উপজেলার পরিষদ চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি এলাকার মানুষের দুর্ভোগের নিরসনে সাহায্য চেয়েছি।
এবিষয়ে যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী বলেন, আমার ইউনিয়নের পূর্বা লের প্রায় ৯০ ভাগ মানুষ পানি বন্দি রয়েছে। ক্ষতি হয়েছে ফসলি জমি ও তলিয়ে রয়েছে রাস্তাঘাট।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বলেন, উপজেলার পুর্বা লে আকর্ষিক বন্যায় অনেক গ্রামের মানুষ পানি রয়েছে। এব্যাপারে উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর পানি বন্দি মানুষের মাঝে টিআর প্রকল্পে ৩ লক্ষ টাকা দিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ১৫ শত পরিবারের জন্য শুকনা খাবার প্যাকেট করা হচ্ছে। দ্রুত পানি বন্দি পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারঃ) আশরাফুল আলম রাসেল ও সহকারি কমিশনা (ভুমি) বলেন, ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মানুষ পানি বন্দি ও রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমরা সবসময় পানিবন্দি মানুষদের খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। তবে সরকারি ভাবে বন্যার্ত পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হবে। পর্যায় ক্রমে আরো দেয়া হবে।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্যাহ বলেন, আমরা কয়েকদিন থেকে নৌকা যোগে পানিবন্দি পরিবারদের কাছে গিয়ে খোজখবর নেয়া হচ্ছে এবং তাদের মাঝে সরকারি ভাবে শুকনো খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দ্রুত বিতরণ করা হবে।

সম্পর্কিত বিষয় :

পাঠকের মন্তব্য:

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। নিউজবিজয় এখন তিন ভাষায় পড়ুন – (NewsBijoy Now Read in Three Languages) 'মানবতার পক্ষে সবসময়'

রৌমারীতে অথৈ পানিতে ৫০ হাজার পরিবার বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপাকে

আপডেট সময় : ০৫:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ জুন ২০২২

গত ৭ দিনের ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে পানি বেড়ে গ্রামের পর গ্রাম পানিবন্দী হয়ে পড়েছে ৩৫ টি গ্রামের ৫০ হাজার পরিবার। তলিয়ে গেছে ২৭ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ৫ শত ২২ হেক্টর জমির আউশ ধান,পাট, তিল, মরিচ ও শাকসবজি। এছাড়াও ৫৫ কিলোমিটার রাস্থাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগের পাশাপাশি কষ্টে দিন কাটছে শ্রমজীবি মানুষ। গবাদী পশুর খাদ্য নিয়ে বিপাকে খামাড়ীরা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার পূর্বা লের ভারতীয় সীমান্ত থেকে বাংলাদেশে পহাড়ি ঢলে পানি প্রবেশ করে কালোপানি হয়ে বাংলাদেশের ধর্ণী ও জিঞ্জিরাম নদীতে প্রবেশ করে নদী উপচে উপজেলার পুর্বা ল প্লাবিত হয় খেওয়ারচর, দুবলাবাড়ি, বকবান্দা, বাওয়াইরগ্রাম, কলাবাড়ি, ফুলবাড়ি, চর ইজলামারি, চান্দারচর, নতুনবন্দর, পুরাতন যাদুরচর, কাশিয়াবাড়িসহ পানিতে থৈ থৈ ৩৫ টি গ্রামের ৫০ হাজার পরিবার। তলিয়ে গেছে ২৭ টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ৫ শত ২২ হেক্টর জমির আউশ ধান,পাট, তিল, মরিচ ও শাকসবজি। এছাড়াও ৫৫ কিলোমিটার রাস্থাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগের পাশাপাশি কষ্টে দিন কাটছে শ্রমজীবি মানুষ। গবাদী পশুর খাদ্য নিয়ে বিপাকে খামাড়ীরা। বন্যার কারনে নিত্য প্রয়োজনীয় সকল জিনিস পত্রের দাম বেড়েছে। অপর দিকে ভারত বাংলাদেশের শুল্ক স্থলবন্দরে আমদানি রপ্তানি গত ১ মাস যাবত বন্ধ রয়েছে। এতে শুল্ক স্থলবন্দরে পাথর আমদানী না হওয়ায় প্রায় ৭ হাজার শ্রমিকরা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
যাদুরচর ইউনিয়নের ছালাম, সাহেব মিয়া জানান, হঠাৎ আকর্ষিক বন্যায় ও ভারতীয় পাহাড়ি ঢলে আসা আমাদের পুরা এলাকাজুড়ে তলিয়ে গিয়ে ধান, পাট, তিল, চিনা, সাকসবজি নষ্ট হয়েছে এবং রাস্তাঘাট তলিয়ে গিয়ে হাট বাজার ও শহর স্থানে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে। এদিকে আমরা অভাবের সংসারে পরিবার নিয়ে কষ্টে আছি।
যাদুরচর ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম বলেন, গত কয়েকদিন থেকে পানি বেড়ে এলাকার মানুষ পানিতে ভাসছে। রাস্তাঘাট তলিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা অচল হয়ে বিপাকে পড়েছে মানুষ। নষ্ট হয়েছে অনেক ফসলি জমি। আমি চেয়ারম্যানসহ উপজেলার পরিষদ চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি এলাকার মানুষের দুর্ভোগের নিরসনে সাহায্য চেয়েছি।
এবিষয়ে যাদুরচর ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী বলেন, আমার ইউনিয়নের পূর্বা লের প্রায় ৯০ ভাগ মানুষ পানি বন্দি রয়েছে। ক্ষতি হয়েছে ফসলি জমি ও তলিয়ে রয়েছে রাস্তাঘাট।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান বলেন, উপজেলার পুর্বা লে আকর্ষিক বন্যায় অনেক গ্রামের মানুষ পানি রয়েছে। এব্যাপারে উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর পানি বন্দি মানুষের মাঝে টিআর প্রকল্পে ৩ লক্ষ টাকা দিয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ১৫ শত পরিবারের জন্য শুকনা খাবার প্যাকেট করা হচ্ছে। দ্রুত পানি বন্দি পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারঃ) আশরাফুল আলম রাসেল ও সহকারি কমিশনা (ভুমি) বলেন, ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের মানুষ পানি বন্দি ও রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমরা সবসময় পানিবন্দি মানুষদের খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। তবে সরকারি ভাবে বন্যার্ত পরিবারের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হবে। পর্যায় ক্রমে আরো দেয়া হবে।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্যাহ বলেন, আমরা কয়েকদিন থেকে নৌকা যোগে পানিবন্দি পরিবারদের কাছে গিয়ে খোজখবর নেয়া হচ্ছে এবং তাদের মাঝে সরকারি ভাবে শুকনো খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দ্রুত বিতরণ করা হবে।