ঢাকা ০৫:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
বিজ্ঞপ্তি :-
NewsBijoy নিউজ বিজয়ের পক্ষ থেকে সবাইকে  অভিনন্দন NewsBijoy  দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল  " নিউজ বিজয় নতুন আঙ্গিকে যাত্রা শুরু করলো " NewsBijoy  এ জন্য  নিউজ বিজয়ের সাইডে আপডেটের কাজ চলছে। তাই এই পরিবর্তনের সময়ে পাঠকের সাময়িক সমস্যা হতে পারে। NewsBijoy

পদ্মা সেতু নির্মাণ

বিপৎসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপরে তিস্তার পানি

  • অনলাইন ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় : ০১:৩০:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ জুন ২০২২
  • ৪৩ বার পড়া হয়েছে ।

তিস্তা ব্যারাজ

নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার সাত সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রবিবার (১৯ জুন) সকাল ৬টায় প্রবাহিত হচ্ছিল বিপৎসীমার ১২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে। সকাল ৯টায় পাঁচ সেন্টিমিটার কমে যায়।

এর আগে শনিবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় তিস্তার পানি বিপৎসীমার পাঁচ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। আজ তা বেড়ে সকাল ৬টায় ১২ সেন্টিমিটারে গিয়ে দাঁড়ায়। ওই পয়েন্টে বিপৎসীমা ৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) গেজ পাঠক ও পানি পরিমাপক মো. নুরুল ইসলাম জানান, আজ হঠাৎ আবারও পানি বেড়ে যাওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে তিস্তা পাড়ের মানুষ।

জানা গেছে, উজানের পাহাড়ি ঢল ও ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে তিস্তা নদীর পানি বাড়ছে। এতে ডিমলা উপজেলার দশটি ইউনিয়নের প্রায় আট হাজারেরও বেশি পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান জানান, হঠাৎ করে আবারও পানি বেড়ে যাওয়ায় তিস্তা নদীবেষ্টিত কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। চর এলাকার মানুষ হাঁটুপানিতে চলাচল করছে। দেখা দিয়েছে সুপেয় পানি ও খাদ্য সংকট।

উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলাম বলেন, ‌‌‘কেউ বাড়ি থেকে বের হতে পারছেন না। তারা শুকনো খাবার খেয়ে কোনোরকমে বেঁচে আছেন। গত চার দিন ধরে সবাই বিপদে।’

পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আসফাউদৌলা প্রিন্স জানান, উজানের পাহাড়ি ঢলে ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি বেড়েছে। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বিপৎসীমার (৫২ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার) ৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। বড় ধরনের কোথাও সমস্যা তৈরি হলে তাৎক্ষণিক মোকাবিলা করা হবে। বন্যার পানি সামাল দিতে ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট (স্লুইসগেট) খুলে রাখা হয়েছে। পাউবোর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সজাগ রয়েছেন।

ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘হঠাৎ করে পানি বৃদ্ধির ফলে তিস্তাবেষ্টিত এলাকার প্রায় ৫০০ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ১৫০ পরিবারকে তাৎক্ষণিকভাবে শুকনা খাবারসহ ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া জেলা প্রশাসন থেকে আরও এক হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার দেওয়া হবে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন

সম্পর্কিত বিষয় :

পাঠকের মন্তব্য:

NewsBijoy

নিউজবিজয়২৪.কম একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল। বস্তুনিষ্ঠ ও তথ্যভিত্তিক সংবাদ প্রকাশের প্রতিশ্রুতি নিয়ে ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাসে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। নিউজবিজয় এখন তিন ভাষায় পড়ুন – (NewsBijoy Now Read in Three Languages) 'মানবতার পক্ষে সবসময়'

মাকে নিয়ে সেলফি তুললেন প্রধানমন্ত্রীকন্যা পুতুল

পদ্মা সেতু নির্মাণ

বিপৎসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপরে তিস্তার পানি

আপডেট সময় : ০১:৩০:০২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ জুন ২০২২

নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার সাত সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রবিবার (১৯ জুন) সকাল ৬টায় প্রবাহিত হচ্ছিল বিপৎসীমার ১২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে। সকাল ৯টায় পাঁচ সেন্টিমিটার কমে যায়।

এর আগে শনিবার (১৮ জুন) সন্ধ্যায় তিস্তার পানি বিপৎসীমার পাঁচ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। আজ তা বেড়ে সকাল ৬টায় ১২ সেন্টিমিটারে গিয়ে দাঁড়ায়। ওই পয়েন্টে বিপৎসীমা ৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) গেজ পাঠক ও পানি পরিমাপক মো. নুরুল ইসলাম জানান, আজ হঠাৎ আবারও পানি বেড়ে যাওয়ায় আতঙ্কে রয়েছে তিস্তা পাড়ের মানুষ।

জানা গেছে, উজানের পাহাড়ি ঢল ও ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে তিস্তা নদীর পানি বাড়ছে। এতে ডিমলা উপজেলার দশটি ইউনিয়নের প্রায় আট হাজারেরও বেশি পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান জানান, হঠাৎ করে আবারও পানি বেড়ে যাওয়ায় তিস্তা নদীবেষ্টিত কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। চর এলাকার মানুষ হাঁটুপানিতে চলাচল করছে। দেখা দিয়েছে সুপেয় পানি ও খাদ্য সংকট।

উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ময়নুল ইসলাম বলেন, ‌‌‘কেউ বাড়ি থেকে বের হতে পারছেন না। তারা শুকনো খাবার খেয়ে কোনোরকমে বেঁচে আছেন। গত চার দিন ধরে সবাই বিপদে।’

পানি উন্নয়ন বোর্ডের ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী আসফাউদৌলা প্রিন্স জানান, উজানের পাহাড়ি ঢলে ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি বেড়েছে। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বিপৎসীমার (৫২ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার) ৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। বড় ধরনের কোথাও সমস্যা তৈরি হলে তাৎক্ষণিক মোকাবিলা করা হবে। বন্যার পানি সামাল দিতে ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট (স্লুইসগেট) খুলে রাখা হয়েছে। পাউবোর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সজাগ রয়েছেন।

ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘হঠাৎ করে পানি বৃদ্ধির ফলে তিস্তাবেষ্টিত এলাকার প্রায় ৫০০ পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। ১৫০ পরিবারকে তাৎক্ষণিকভাবে শুকনা খাবারসহ ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া জেলা প্রশাসন থেকে আরও এক হাজার প্যাকেট শুকনা খাবার দেওয়া হবে।

নিউজবিজয়/এফএইচএন